লক্ষ্মীপুরে থানা থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে যুবককে হত্যার চেষ্টা

লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জে থানা থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে শওকত ইসলাম (৪০) নামে এক যুবককে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টার দিকে চন্দ্রগঞ্জ ইউপির দেওপাড়া গ্রামের চকিদার বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। পরে আহতকে উদ্ধার করে সিএনজি অটোরিকশাযোগে সদর হাসপাতালে নিয়ে তার স্বজনরা। আহত শওকত একই গ্রামের আইনুদ্দিন হুজুরগো বাড়ির মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে, তিনি পেশায় একজন কাঠমেস্ত্রী।

এদিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ সোহেল রানা ও চন্দ্রগঞ্জ থান ওসি মোহাম্মদ মোসলেহ উদ্দিনসহ সঙ্গীয় ফোর্স।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাত ৮টার দিকে শওকত থানায় যায়। তার বিরুদ্ধে নিজ বাড়ির প্রবাসী বেলাল হোসেনের স্ত্রীর অলংকার চুরির একটি অভিযোগ আছে। ওই অভিযোগের আলোকে তাকে থানায় তলব করা হয়। এরপর অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তার সাথে কথা বলে বাড়ি চলে যায় শওকত।

রাত ১০টার দিকে দেওপাড়া গ্রামের চকিদার বাড়ির সামনে পৌঁছালে শওকতকে আকস্মিক ঘিরে ফেলে অজ্ঞাত ৬/৭ জনের একদল দুর্বৃত্ত। এসময় শওকতের গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালায় তারা। পরে শোর-চিৎকার শুনে লোকজন এগিয়ে এলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়।

এ দিকে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. রাজিব চন্দ্র পাল জানান, গলার চামড়া যথেষ্ট কাটা গেছে। আমরা তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দিয়েছি। এখন সে আশঙ্কামুক্ত।

চন্দ্রগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মোসলেহ উদ্দিন জানিয়েছেন, শওকতের উপর হামলা ও হত্যার চেষ্টায় তাকে কারা আঘাত করেছে আমরা তদন্ত করে রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করছি। তিনি বলেন, আহত শওকতকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এখন সে আশঙ্কামুক্ত আছে। তদন্ত করে আমরা পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নিব।